দুঃস্থ মহিলাদের স্বাবলম্বী করছে ফুলতলার পণ্য সামগ্রী বিক্রয় ও প্রদর্শনী কেন্দ্র

উপজেলা মহিলা বিষয়ক কর্মকর্তার উদ্ভাবন

87

Fultolaকাজী সায়েমুজ্জামান, খুলনা থেকে ফিরে: খুলনা জেলার ফুলতলা উপজেলার দামুদর ইউনিয়নের ৯ নম্বর ওয়ার্ডের রুপা বিশ্বাসের সাথে অাপনাদের পরিচয় করিয়ে দিচ্ছি৷ তিনি সুকুমার বিশ্বাসের স্ত্রী৷ আজ ১৩ মার্চ ২০১৮ তারিখ দুপুরে তাদের বাড়িতে গিয়ে হাজির হই৷ দেখি, একদিকে তার চুলায় দুপুরের রান্না ৷ অন্যদিকে সেলাই মেশিনে ম্যাক্সি সেলাই করছেন৷ ম্যাক্সির এই কাজটা পেয়েছেন কারুকথা নারী উন্নয়ন সংস্থা থেকে৷ ম্যাক্সি তৈরীর প্রশিক্ষণও পেয়েছেন সেখান থেকে৷ একসময় খুব দরিদ্র ছিলো রুপা বিশ্বসের পরিবার৷ স্বামী পার্ট টাইম ড্রাইভার৷ অাজ কাজ অাছে তো কাল নেই৷ দুই মেয়ের পড়ালেখা বন্ধ হয়ে যাবার পথে৷ বাইরে গিয়ে যে কাজ করবেন, তাতে বাঁধা দেন শ্বাশুড়ি৷ তার যুক্তি সংখ্যালঘু একজন নারীর কাজ করতে বাইরে যাওয়া নিরাপদ না৷ কি করবেন তিনি৷ হন্যে হয়ে ঘরে বসে অায়ের পথ খুঁজতে থাকেন৷

fultola-02প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়ের এটুঅাই প্রোগ্রাম থেকে সরকারি কর্মকর্তাদের নাগরিক সেবায় উদ্ভাবন বিষয়ক প্রশিক্ষণ দেয়া হয়৷ এ প্রশিক্ষণে সরকারি কর্মকর্তারা তার সেবা গ্রহীতার সুবিধা এবং সেবা প্রদান সহজ করার জন্য একটি উদ্যোগ নেন৷ এই প্রশিক্ষণে ফুলতলা উপজেলার মহিলা বিষয়ক কর্মকর্তা ফারহানা ইয়াসমিন অংশ নেন৷ তিনি প্রশিক্ষণে একটি অাইডিয়া গ্রহণ করেন৷ সরকার অতি দরিদ্র মহিলাদের ভিজিডি সহায়তা প্রদান করে থাকে৷ এরা সাহায়তা পেয়ে অারো নির্ভরশীল হয়ে যান৷ ফলে খাদ্য সহায়তা কোন কাজে অাসেনা৷ তিনি ভিজিডি সাহায্যপ্রাপ্ত মহিলাদের হাতের কাজের প্রশিক্ষণ দিয়ে অাত্মকর্ম সংস্থানের ব্যবস্থা গ্রহণের অাইডিয়া গ্রহণ করেন৷ কর্মস্থলে ফিরে উৎসাহী মহিলাদের খুজঁতে থাকেন৷ পেয়ে যান একজন উদ্যোক্তা কহিনূর জাহানকে৷ তিনি কয়েকজন দুঃস্থ মহিলাকে নিয়ে কাজ করছেন৷ তাদের দর্জি কাজ শেখান৷ হাতের কাfultola-04জ করান৷ ফরমায়েশ অনুযায়ী কাজ৷ কিন্তু রেডিমেট তৈরী করে বিক্রির ভালো কোন ব্যবস্থা করতে পারেন নি৷ উপজেলা মহিলা বিষয়ক কর্মকর্তা সাহায্যের হাত বাড়িয়ে দেন৷ তিনি ভিজিডি সাহায্যপ্রাপ্ত মহিলাদের প্রশিক্ষণ ও ঋণ প্রদানের উদ্যোগ নেন৷ এর মাধ্যমে বিভিন্ন হস্তশিল্প তৈরী হলো৷ কিন্তু বিক্রি করতে গিয়েই সমস্যা তৈরী হলো৷ এসময় তাদের সাহায্যে এগিয়ে অাসেন ফুলতলা উপজেলার ইউএনও লুলু বিলকিস বানু৷ তিনি উপজেলা পরিষদের প্রবেশের মুখেই বাম পাশে একটি অাউট লেট স্থাপনের উদ্যোগ নেন৷ এগিয়ে অাসেন যুব উন্নয়ন কর্মকর্তা৷ হাস মুরগি, পশুপালনের প্রশিক্ষণ দেয়া হয়৷ সমাজসেবা কর্মকর্তা, সমবায় কর্মকর্তা যুক্ত হন এতে৷ ফলে সমবায় তৈরী হলো৷ দেয়া হলো প্রশিক্ষণ৷ উৎপাদন হলো৷ উৎপাদিত পণ্য বিক্রির স্থান হলো৷ গত ২১ সেপ্টেম্বর খুলনার জেলা প্রশাসক মোঃ অামিন উল অাহসান মহিলাদের উৎপাদিত পণ্য সামগ্রী বিক্রয় ও প্রদর্শনীর কেন্দ্রটি উদ্বোধন করেন৷

রুপা বিশ্বাসের সাথে পরিচয় করিয়ে দিয়েছিলাম৷ রুপা বিশ্বাসের ঘরে কড়া নাড়ে এই সমবায়৷ তাকে দর্জি কাজের প্রশিক্ষণ দেয়া fultola-03হয়৷ দেয়া হয় টুকরো কাপড় দিয়ে পাপোস তৈরীর প্রশিক্ষণ৷ তিনি বানাতে শেখেন উল দিয়ে কিভাবে বাচ্চাদের জুতা তৈরী করা যায়৷ তার তৈরী জিনিস বিক্রি হচ্ছে এই অাউটলেটে৷ ফলে তার সংসারে স্বাচ্ছন্দ্য এসেছে৷এ বিক্রয় কেন্দ্রে ভোক্তাদের সাথে কথা হলো ৷ অাউটলেটে জামা কাপড় বানাতে এসেছেন উপজেলার বেশ কয়েকজন মহিলা কাস্টমার৷ তারা জানালেন, এখানে সবাই মহিলা হওয়ায় সেবা নিতে স্বাচ্ছন্দ্য বোধ করছেন৷ মহিলাদের সবকিছুই পাওয়া যায়৷ মহিলাদের প্যাড যেটা পুরুষ দোকানদারের কাছ থেকে কিনতে অস্বস্তি লাগতো এখান থেকে সহজেই কিনতে পারেন৷ এখানে নকশি কাঁথা, জামা কাপড়, ব্লক বাটিকের কাজ করা চাদর, পাঞ্জাবি শাড়িসহ কয়েকশ ধরণের পণ্য পাওয়া যায়৷

fultola-05শুধু কি হাতের কাজ? তারা নিজেদের তৈরী খাবারও বিক্রি করেন৷ নিজেরা পিঠা তৈরী করেন৷ বিভিন্ন অনুষ্ঠানে সরবরাহ করেন৷ জেলার বিভিন্ন প্রোগ্রামে তারা খাদ্য সরবরাহ করেন৷  ফুলতলার বর্তমান উপজেলা নির্বাহী অফিসার (ইউএনও) মাশরুবা ফেরদৌস বলেন, উপজেলায় যত অনুষ্ঠানের অায়োজন করা হয়, মিটিং করা হয়, নাশতা বা পিঠা সরবরাহ করা হয় এই বিক্রয় কেন্দ্র থেকে৷ মহিলারাই নিজেদের ঘরে দরদ দিয়ে এসব খাদ্য তৈরী করছেন৷ শুনলে অবাক হবেন এই সমবায়ের মহিলা সদস্যদের সংখ্যা এখন ৯৫ জন৷ এর মধ্যে ৪৭ জন ভিজিডি সাহায্যপ্রাপ্ত৷ তাদের অবস্থা ফিরে গেছে৷ সবাই স্বচ্ছলতার পথে৷ অচিরেই তাদের অার ভিজিডি সাহায্য তাদের অার দরকার হবেনা৷